নগরীর প্রবর্তক থেকে নগর বিএনপির আহ্বায়ক ডাঃ শাহাদাত হোসেন আটক

চট্টগ্রামে বিএনপি ও আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি’র আহ্বায়ক ডাঃ শাহাদাত হোসেনকে এ ঘটনার তিন ঘণ্টার মধ্যেই আটক করেছে পুলিশ। নগরীর প্রবর্তক মোড় এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। এসময় ডাঃ শাহাদাতের পিএ মারুফসহ আরও ২ জনকে পুলিশের গাড়িতে তোলা হয়। 

সোমবার (২৯ মার্চ) সন্ধ্যা ৭ টার দিকে চট্টগ্রাম নগররের পাঁচলাইশ থানার প্রবত্তর্ক মোড় এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। এসময় ট্রিটমেন্ট হাসপাতাল থেকে ডাঃ শাহাদাত হোসেন সহ আরও ৩ জনকে গাড়িতে তুলতে দেখা যায়।

এরআগে দুপুর ৩ টা থেকে মোদিবিরোধী বিক্ষোভে ও মিছিলে হেফাজত-পুলিশ সংঘর্ষের প্রতিবাদে বিএনপি বিক্ষোভ কর্মসূচী দেয় আজ। সে কর্মসূচী পালন করতে এসে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে বিএনপি নেতা কর্মীরা। এসময় বিএনপি নেতা-কর্মীরা অগ্নিসংযোগ করে।

এরপর তারা ককটেলবাজির পাশাপাশি পুলিশের ওপরও হামলা করেছে। কয়েকজন পুলিশ সদস্য বলেন তাদের হামলা থেকে বাদ পড়েনি কাজির দেউড়ি পুলিশ বক্স, পুলিশের নিরাপত্তার কাজে ব্যবহৃত ঢাল ও স্বয়ং কয়েকজন পুলিশ সদস্যরাও।  

যদিও হামলার পর চট্টগ্রাম মহানগর মহিলা দলের সভানেত্রী মনিসহ বিএনপির ১৫ নেতাকর্মীকে আটক করেছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী।

সিএমপি কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর গণমাধ্যমকে জানান, ‘সন্ধ্যায় পুলিশ ট্রিটমেন্ট হাসপাতাল থেকে ডা. শাহাদাত ও তার পিএ মারুফসহ তিনজনকে আটক করা হয়েছে।’

নগর বিএনপির আহ্বায়ক ডা. শাহাদাত হোসেন গত সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী ছিলে। এর আগে কারাগারে থেকেই ২০১৮ সালের সংসদ নির্বাচনে শাহাদাত কোতোয়ালী আসন থেকে নির্বাচন করেছিলেন। দু’বারই পরাজিত হয়ে জামানত হারিয়েছেন তিনি। এছাড়া জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগেই ডাঃ শাহদাত একটি নাশকতার মামলায় ঢাকা জজকোর্ট এলাকা থেকে গ্রেপ্তার হয়েছিলেন।

উল্লেখ্য শাহাদাত হোসেন দীর্ঘদিন ধরে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতির দায়িত্ব পালনের পর নতুন করে ৩১ সদস্যের কমিটিতে তিনি আহ্বায়কের দায়িত্ব পেয়েছিলেন যা এখনো তিনি পালন করছেন।

বে অব বেঙ্গল নিউজ / bay of bengal news