হেফাজত ‘সংকট’ সৃষ্টি করে সরকার ফায়দা নিচ্ছে | মির্জা ফখরুল

হেফাজতে ইসলাম নিয়ে ‘সংকট’ সৃষ্টি করে সরকার ফায়দা নিচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
হেফাজত 'সংকট' সৃষ্টি করে সরকার ফায়দা নিচ্ছে | মির্জা ফখরুল
হেফাজত ‘সংকট’ সৃষ্টি করে সরকার ফায়দা নিচ্ছে | মির্জা ফখরুল
সোমবার (২৬ এপ্রিল) এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে এই মন্তব্য করেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘রাজনৈতিক দল হিসেবে মনে করি, হেফাজত নিয়ে পুরো সমস্যাটা সরকার তৈরি করে ফায়দা নিচ্ছে। এটাকে উপলক্ষ করে সরকার সারাদেশে লকডাউন দিয়ে বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের ওপর ক্রাকডাউন করতে পারছে। যেখানে বিএনপি কোনোমতেই এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত নয়, সেখানে আমাদের নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে অসংখ্য মামলা দিয়েছে।’

২৬ মার্চ ঢাকার বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদ প্রাঙ্গণ, ব্রাক্ষ্মণবাড়ীয়া ও চট্টগ্রামে সংঘর্ষের ঘটনা প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা মানুষ হত্যার প্রতিবাদ করেছি, আন্দোলন করা আমাদের সাংবিধানিক অধিকার।

কিন্তু আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বিএনপিকে জড়িয়ে অবলীলায় কল্পকাহিনী প্রচার করছেন, মিথ্যাচার করছেন।

তিনি বলেন, ‘বিএনপি গণতান্ত্রিক দল। নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় যাওয়ার দল। এই ধরনের ঘটনার সঙ্গে বিএনপি ও এই দলের শীর্ষ নেতাদেরকে যুক্ত করা কোনোভাবে গ্রহণযোগ্য নয়।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘গ্রেফতার হেফাজত নেতৃবৃন্দেকে রিমান্ডে নিয়ে নির্যাতন করে তাদের কাছ থেকে মিথ্যা স্বীকারোক্তির বরাত দিয়ে মিথ্যাচার চালানো হচ্ছে। এটা বিএনপির শীর্ষ নেতাদের মামলাতেও দেখেছি।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলা মামলার এফআইআরে কোথাও নাম নেই। তিনটা তদন্ত হয়েছে কোথাও তারেক রহমানকে সম্পৃক্ত করা হয় নাই।

আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পরে একজনকে দায়িত্ব দিয়ে, নতুন করে তদন্ত কর্মকর্তা নিয়োগ করে, আসামীকে রিমান্ডে নিয়ে, ১২৩ দিন অত্যাচার করে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানকে জাড়ানো হয়েছে।’

বিরোধী দল, বিশেষ করে বিএনপিকে নিশ্চিহ্ন করা সরকারের আরেকটা কৌশল বলে মন্তব্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বিএনপি হচ্ছে তাদের একমাত্র প্রতিপক্ষ।

জনগণকে সংগঠিত করে, নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় আসতে পারে একমাত্র বিএনপি। সেই কারণে তারা বিএনপিকে নির্মূল করার চেষ্টা চালাচ্ছে।’

খুলনা প্রেস ক্লাবের সহ-সভাপতি সাংবাদিক আবু তৈয়ব মুন্সিকে ডিজিটাল সিকিউরিটি আইনে গ্রেপ্তারের নিন্দা জানিয়ে এই আইনে গ্রেপ্তারদের মুক্তি দাবি করেন বিএনপি মহাসচিব। মির্জা ফকরুল বিএনপি নেত্রী অ্যাডভোকেট নিপুন রায় চৌধুরীরও মুক্তি দাবি করেন।
বে অব বেঙ্গল নিউজ / Bay of bengal news