স্বামীর হাতে খুন আওয়ামী লীগ নেত্রী

রাজধানী ঢাকার পল্লবীর ডিওএইচএস এলাকায় পারিবারিক কলহের জেরে এক আওয়ামী লীগ নেত্রীকে কুপিয়ে খুন করার অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে। নিহত নারী উমামা বেগম কনক (৪২) আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য এবং বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক নেত্রী।
স্বামীর হাতে খুন আওয়ামী লীগ নেত্রী
স্বামীর হাতে খুন আওয়ামী লীগ নেত্রী
শুক্রবার (২৩ এপ্রিল) রাতে উমামাকে নিজের বাসায় বটি দিয়ে এলোপাতাড়ি কোপানো হয়। শনিবার ভোরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় তার স্বামী ওমর ফারুক (৫১) কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

উমামার দুলাভাই মো. বাবুল জানান, পল্লবীর ডিওএইচএসের এভিনিউ-৪ এর ১১ নম্বর রোডে একটি ফ্ল্যাটে স্ত্রী-সন্তান নিয়ে বসবাস করে আসছিলেন ওমর। তিনি দীর্ঘদিন জাপানে থেকে দেশে ফিরে আসেন কয়েক বছর আগে। তাদের দুই সন্তান। বড় মেয়ে ফাহিমা ‘ও’ লেভেল এবং ছেলে ওয়াসিফ তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী।

পুলিশ জানিয়েছে, শুক্রবার রাতে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে ওমর রান্না ঘর থেকে বটি নিয়ে উমামাকে কোপানো শুরু করেন। রক্তাক্ত হয়ে মেঝেতে পড়ে যান তিনি। এরপর ডিওএইচএস কর্তৃপক্ষ তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যায়।

অবস্থার অবনতি হলে রাত ১২টার দিকে তাকে ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। শনিবার ভোর পৌনে ৬টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

পল্লবী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী ওয়াজেদ আলী জানান, জাপান প্রবাসী ওমর ফারুক পাঁচ বছর আগে দেশে এসে ব্যবসা শুরু করে ক্ষতিগ্রস্ত হন। ফ্ল্যাট নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে শুক্রবার রাতে ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে বটি দিয়ে কুপিয়ে ওমর স্ত্রীকে জখম করেন।

ওসি আরো জানান, উমামার মরদেহ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়। এরপর ময়নাতদন্ত শেষে হস্তান্তর করা হয়েছে স্বজনদের কাছে।

এছাড়া এ ঘটনায় হত্যা মামলা এবং স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগে ওমরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

এদিকে আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য এবং বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক নেত্রী উমামা বেগম কনকের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শনিবার (২৪ এপ্রিল) এক শোকবার্তায় নিহত উমামার আত্মার মাগফেরাত কামনা এবং শোকসন্তপ্ত পরিবার, সহকর্মী, গুণগ্রাহীদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান ওবায়দুল কাদের।

জানা যায়, শুক্রবার রাত ১২ টার দিকে স্বামী স্ত্রীকে ফ্ল্যাটের অংশ তার নামে লিখে দিতে বলেন। রাজি না হওয়ায় ওমর ফারুক রান্নাঘর থেকে বটি এনে স্ত্রীকে উপর্যুপরি কুপিয়ে আহত করেন। পরে স্বজনরা উমামাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করালে রাতেই তিনি মারা যান।
বে অব বেঙ্গল নিউজ / Bay of bengal news