শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে চ.বি. উপাচার্যের আহ্বান- “জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের আত্মত্যাগের মহিমা হৃদয়ে ধারণ করে ঐক্যবদ্ধভাবে স্বাধীনতা বিরোধীদের প্রতিহত করার।”

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোগে যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাবগম্ভীর পরিবেশে ১৪ ডিসেম্বর ২০২০ শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে পুষ্পস্তবক অর্পন করে পালন করা হয়।
শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে চ.বি. উপাচার্যের আহ্বান- "জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের আত্মত্যাগের মহিমা হৃদয়ে ধারণ করে ঐক্যবদ্ধভাবে স্বাধীনতা বিরোধীদের প্রতিহত করার।"
শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে চ.বি. উপাচার্যের আহ্বান- “জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের আত্মত্যাগের মহিমা হৃদয়ে ধারণ করে ঐক্যবদ্ধভাবে স্বাধীনতা বিরোধীদের প্রতিহত করার।”

সোমবার সকাল ১০ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতি সৌধে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে শহীদদের স্মরণে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের সকলকে সাথে নিয়ে পুস্পস্তবক অর্পণ করে দেশ ও জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন এবং সংক্ষিপ্ত বক্তব্য প্রদান করেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার

এরপর চবি বঙ্গবন্ধু চত্বরে বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের সকলকে সাথে নিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান -এঁর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। শহীদ বুদ্পুধিজীবী দিবসে শহীদদের স্মরণে পুষ্পস্তবক অর্পণ অনুষ্ঠানে চবি সিনেট ও সিন্ডিকেট সদস্যবৃন্দ, অনুষদের ডিনবৃন্দ, শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দ, রেজিস্ট্রার, কলেজ পরিদর্শক, হলের প্রভোস্টবৃন্দ, বিভাগীয় সভাপতি, ইনস্টিটিউট ও গবেষণা কেন্দ্রের পরিচালকবৃন্দ, শিক্ষকবৃন্দ, প্রক্টর ও সহকারী প্রক্টরবৃন্দ, অফিস প্রধানবৃন্দ, বঙ্গবন্ধু পরিষদের নেতৃবৃন্দ, অফিসার সমিতি, কর্মচারী সমিতি ও কর্মচারী ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ, শিক্ষার্থীবৃন্দ এবং বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মাননীয় উপাচার্য তাঁর সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের বিনম্র চিত্তে গভীর শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন। তিনি হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশের মহান স্থপতি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, বঙ্গবন্ধু পরিবারের শহীদ সদস্যবর্গ, মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদ ত্রিশ লক্ষ বীর বাঙালি এবং শহীদ জাতীয় চারনেতাকে বিনম্র চিত্তে গভীর শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন। তিনি মহান মুক্তিযুদ্ধে নির্যাতিত দু’লক্ষ জায়া-জননী-কন্যার প্রতি বিশেষ সম্মান প্রদর্শন করেন।

মাননীয় উপাচার্য বলেন, শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে আজকের এই দিনে ইতিহাসের সবচেয়ে ঘৃণ্যতম, ন্যাক্কারজনক ঘটনা হলো বুদ্ধিজীবী হত্যা। পরাজয় নিশ্চিত জেনে স্বাধীনতার পরেও যেন বাংলাদেশ বিশ্বে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে না পারে সেই নীল নকশা বাস্তবায়নে দেশকে মেধাশূণ্য করতে রাজাকার-আলবদরসহ দেশীয় দোসরদের প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় হায়েনার দল এই নির্মম, নৃশংস, অমানবিক, হত্যাকান্ড সংঘটিত করে। কিন্তু তাদের সেই দূরভিসন্ধি পূর্ণ হয়নি। বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার সাহসী ও দূরদর্শী নেতৃত্বে বাংলাদেশ দুরন্ত-দূর্বার গতিতে এগিয়ে চলেছে উন্নয়নের পথে। বিশ্বে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল।

তিনি আরও বলেন, সেই পরাজিত, ঘৃণ্য গোষ্ঠিরা আজ আবারও মাথাচাড়া দিয়ে উঠার পায়তারা করছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর ভাষ্কর্য ভাঙার মতো ন্যাক্কারজনক ঘটনা ঘটানোর মাধ্যমে দেশে একটি অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টির অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। মাননীয় উপাচার্য বলেন, স্বাধীনতার পর সেই সকল ঘৃণ্য অপরাধীরা যেভাবে ইতিহাসের আস্তাকুঁড়ে নিক্ষিপ্ত হয়েছে, ঠিক তেমনি তাদের এই দোসর নব্য স্বাধীনতা বিরোধীদের পরিণতিও একইরকম হবে মর্মে দৃঢ় আশাবাদ ব্যাক্ত করেন।

মাননীয় উপাচার্য শহীদ বু্িদ্ধজীবী দিবসের এই দিনে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের এই মহান আত্মত্যাগ হৃদয়ে ধারণ করে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে স্বাধীনতা বিরোধী এই অপশক্তিকে ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিহত করার আহ্বান জানান। পরে চবি মাননীয় উপাচার্যের নেতৃত্বে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে চবি শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতি সৌধ চত্বরে প্রতীকী মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠান শুরুতে বিভিন্ন ধর্মগ্রন্থ থেকে বাণি পাঠ করা হয় শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে। অনুষ্ঠানে শহীদ বুদ্বুধিজীবী দিবসে বুদ্ধিজীবীদের সম্মানে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে উপলক্ষে কর্মসূচির অংশ হিসেবে কালো ব্যাজ ধারণ করা হয়। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ডেপুটি রেজিস্ট্রার (তথ্য) জনাব দিবাকর বড়ুয়া।

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালন উপলক্ষে কর্মসূচির অংশ হিসেবে সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভবনসমূহে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত এবং কালো পতাকা উত্তোলন করা হয়। ফজরের নামাজের পর বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল মসজিদে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত, কেন্দ্রিয় মন্দিরে গীতপাঠ ও শহীদ বুদ্ধিজীবীদের চিরশান্তি কামনায় বিশেষ প্রার্থনা এবং অন্যান্য ধর্মাবলম্বীদের স্ব স্ব উপাসনালয়ে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের আত্মার সদগতি কামনা করে প্রার্থনা করা হয়।

বে অব বেঙ্গল নিউজ /BAY OF BENGAL NEWS

বে অব বেঙ্গল নিউজ - Bay of Bengal News

বে অব বেঙ্গল নিউজ