চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ময়লা পরিষ্কারের নতুন বুদ্ধি

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ময়লা পরিষ্কারের নতুন বুদ্ধি
চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ময়লা পরিষ্কারের নতুন বুদ্ধি

চট্টগ্রাম নগরীতে বর্জ্য ব্যবস্থাপনার সরঞ্জামে যুক্ত হয়েছে অত্যাধুনিক সুইপিং ট্রাক, একটি সুইপিং ট্রাক একসঙ্গে ২০ জন পরিচ্ছন্ন কর্মীর সমান কাজ করতে পারে। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

আজ বুধবার (২৮ অক্টোবর) সকালে নগরীর জিইসি ও দেওয়ানহাট মোড়ে সুইপিং ট্রাকের মাধ্যমে পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন চসিক প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন।

প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন বলেন, ‘সুইপিং ট্রাকের মাধ্যমে আবর্জনা সংগ্রহের পর সুবিধাজনক স্থানে সেগুলো খালাস করা হবে। আবর্জনা খালাসের পর গাড়িটি ধুয়ে ফেলার সুযোগ আছে। ইতোমধ্যে ট্রাকগুলো চালানোর জন্য চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের চালকদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। ট্রাকগুলো মেরামতের জন্য একজন ফোরম্যান ও একজন মেকানিককে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে।’

চসিকের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, নগরীর বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কার্যক্রমে আরও গতি আনতে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় সম্প্রতি চসিককে তিনটি আধুনিক ভ্যাকুয়াম টাইপ রোড সুইপার ট্রাক দিয়েছে। ইতালি থেকে আনা এসব ট্রাকের একটির মাধ্যমে প্রতিবারে অন্তঃত ১২ কিলোমিটার সড়ক পরিষ্কার করা সম্ভব। ট্রাকে থাকা পাইপের মাধ্যমে ‍মুহূর্তের মধ্যে ধুলোবালি-বর্জ্য তুলে নেওয়া যায়। একইসঙ্গে ট্রাকে থাকা ট্যাংকের মাধ্যমে পানি ছিটিয়ে রাস্তা পরিষ্কার করা হচ্ছে।

চসিকের পরিচ্ছন্ন বিভাগে স্থায়ী শ্রমিকের সংখ্যা ৭৩০ জন। অস্থায়ী শ্রমিক আছেন ৮৯৮ জন। সর্বমোট ১৬২৮ জন শ্রমিক ‘ডোর টু ডোর’ বর্জ্য অপসারণ প্রকল্প শুরুর আগে থেকেই চসিকে কর্মরত আছেন। স্থায়ী-অস্থায়ী প্রায় তিন হাজার কর্মীর সঙ্গে যুক্ত সুইপিং ট্রাক চট্টগ্রাম নগরীর পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমে নতুন মাত্রা যোগ করবে বলে মন্তব্য করেছেন চসিক প্রশাসক।

সুজন আরও বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চট্টগ্রাম নগরীকে সুন্দর ও পরিবেশবান্ধব বাসযোগ্য নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে আন্তরিক। এর প্রমাণ হচ্ছে চসিককে এই আধুনিক স্যুইপিং ট্রাক দেওয়া।’

সুইপিং ট্রাকের কার্যক্রমের উদ্বোধনের সময় চসিক প্রশাসকের একান্ত সচিব মুহাম্মদ আবুল হাশেম, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী সুদীপ বসাক, নির্বাহী প্রকৌশলী জয়সেন বড়ুয়া, মির্জা ফজলুল কাদের, অতিরিক্ত প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মোরশেদুল আলম চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

বে অব বেঙ্গল নিউজ / BAY OF BENGAL NEWS