পুলিশ-বিজিবি’র ওপর হামলা চালিয়ে আফগানিস্তানে ‘হিজরত’ করতে চেয়েছিল ৪ জঙ্গি

টহলরত পুলিশ ও বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সদস্যদের ওপর হামলা চালিয়ে আফগানিস্তানে ‘হিজরত’ করতে চেয়েছিল নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলামের চার জঙ্গি।

শনিবার (৮ মে) রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তারের পর রোববার এসব তথ্য জানিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কাউন্টার টেররিজম ইউনিট। নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠনটির সদস্যরা অক্সিজেন সিলিন্ডার দিয়ে বিস্ফোরক তৈরি করে দেশে বড় ধরনের নাশকতার পরিকল্পনায় ছিল বলেও পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

পুলিশ-বিজিবি'র ওপর হামলা চালিয়ে আফগানিস্তানে 'হিজরত' করতে চেয়েছিল ৪ জঙ্গি
পুলিশ-বিজিবি’র ওপর হামলা চালিয়ে আফগানিস্তানে ‘হিজরত’ করতে চেয়েছিল ৪ জঙ্গি
গ্রেপ্তার চারজন হলো-রাজধানীর অতীশ দীপঙ্কর বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএর ছাত্র জসিমুল ইসলাম জ্যাক (২৫), সিলেটের আল হিদায়া ইসলামিক ইনস্টিটিউটের ছাত্র আমিনুল হক (২০), সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজের অনার্সের শিক্ষার্থী সজীব ইখতিয়ার (২০) এবং হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ থানার মারকাজুস সুন্নাহ আল ইসলামিয়া মাদরাসার শিক্ষক আব্দুল মুকিত (২৯)।

তাদের কাছ থেকে একটি ব্যাগ, একটি চাপাতি, পাঁচটি স্মার্ট ফোন ও দুটি ল্যাপটপ উদ্ধার করা হয়।

তলোয়ার নিয়ে জাতীয় সংসদ ভবনে হামলার পরিকল্পনার অভিযোগে আনসার আল ইসলামের এক জঙ্গি ও তাকে উসকানিদাতা ‘বাঙলার ওসমা’কে গ্রেপ্তারের তিন দিনের মাথায় একই সংগঠনের চারজনকে গ্রেপ্তারের তথ্য জানালো পুলিশ।

রোববার (৯ মে) ডিএমপি মিডিয়া সেন্টার ওই চারজনকে গ্রেপ্তারের তথ্য জানিয়ে পুলিশের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন করা হয়।

সেখানে কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের প্রধান ডিআইজি মো. আসাদুজ্জামান জানান, আনসার আল ইসলামের গ্রেপ্তার সদস্যরা ঢাকা ও সিলেটে পুলিশ ও বিজিবির টহল টিমে হামলার পরিকল্পনা করেছিল। এজন্য তারা কয়েকটি জায়গায় রেকিও করে। এরা নাশকতা ঘটিয়ে আফগানিস্তানে চলে যাওয়ার প্রস্তুতিতে ছিল।

সিটিটিসির প্রধান বলেন, গ্রেপ্তার চারজন এবং তাদের অন্য সদস্যরা ‘সায়েন্স প্রজেক্ট’ নামে একটি মেসেঞ্জার গ্রুপ খুলে নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ রাখতো। ওই গ্রুপের দুইজন এরইমধ্যে আফগানিস্তানে চলে গেছে।

জঙ্গিরা হঠাৎ কেন বিজিবিকে নিশানা করল- এমন প্রশ্নের জবাবে আসাদুজ্জামান বলেন, ‘জঙ্গিরা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে তাদের হামলার লক্ষ্য হিসেবে রেখেছে। আনসার আল ইসলামের এই গ্রুপটির আফগানিস্তানে ‘হিজরত’ করা নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমাদের দেশে যে কটি জঙ্গি সংগঠন সক্রিয়, তাদের অধিকাংশই আল-কায়েদার সঙ্গে তাদের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে বলে দাবি করে থাকে।

আনসার আল ইসলাম উপমহাদেশের আল-কায়েদার শাখা বলেও দাবি করে। সেই সূত্র ধরেই তারা হয়তো আফগানিস্তানে হিজরত করতে গিয়ে থাকতে পারে। তবে এটা তাদের ভাষ্য, এ বিষয়ে আমরা এখনও নিশ্চিত হতে পারিনি।’

সংবাদ সম্মেলনে অপর এক প্রশ্নের জবাবে সিটিটিসি প্রধান বলেন, ‘জঙ্গিদের এই গ্রুপটির পরিকল্পনা ছিল অক্সিজেন গ্যাস সিলিন্ডারের মাধ্যমে বড় ধরনের বিস্টেম্ফারণ ঘটানো। এ বিষয়টি তাদের পরিকল্পনা পর্যায়েই ছিল। এসব বিষয়ে বিস্তারিত খোঁজ নেওয়া হচ্ছে। ‘

অবশ্য জঙ্গি সংগঠনগুলো বিভিন্ন সময়ে নিজেদের আন্তর্জাতিক বা মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গি সংগঠনের শাখা দাবি করে আসলেও দেশের আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তারা বলে আসছেন, দেশে আন্তর্জাতিক কোনো জঙ্গি গোষ্ঠী নেই। স্থানীয় উগ্রবাদী ও জঙ্গিরাই হামলা অপতৎপরতা চালায়। তবে টানা অভিযানে এদের নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, গ্রেপ্তার ওই জঙ্গিরা সম্প্রতি সংগঠনের নেতাদের নির্দেশে সিলেটের কোতোয়ালী থানা এলাকায় একটি আবাসিক হোটেলে ধারালো অস্ত্র নিয়ে হামলা করে হোটেল ম্যানেজারকে আহত করে পালিয়ে যায়।

কাউন্টার টেররিজম ইনভেস্টিগেশন বিভাগের একজন কর্মকর্তা বলেছেন, সিলেটের ওই হোটেলটিতে অসামাজিক কার্যকলাপ চলতো বলে আনসার আল ইসলামের জঙ্গিরা দাবি করছে। এজন্যই সেখানে হামলা চালানো হয়। বিষয়টি বিস্তারিত তদন্ত চলছে।

সম্প্রতি আফগানিস্থানে পালিয়ে যাওয়া দুই জঙ্গির বিষয়ে ওই কর্মকর্তা বলেন, ওই ঘটনায় সিলেটের একটি থানায় সাধারণ ডায়েরি হয়েছে। আফগানিস্তানে যাওয়া দুইজনের মধ্যে একজন আব্দুর রাজ্জাক বলে জানা গেছে। তার বাড়ি কুমিল্লাতে। পুরো ঘটনাটিই তারা খতিয়ে দেখছেন।

সিটিটিসি সূত্র জানায়, গ্রেপ্তার ওই ব্যক্তিদের আনসার আল ইসলামে ভিড়িয়েছে সংগঠনটির দায়িত্বশীল বা মাসুল ফরিদ ওরফে তারিক ও আবদুল্লাহ। এরা সামাজিক যোগাযোগ অ্যাপস এর মেসেঞ্জার চ্যাটগ্রুপ ও ব্যক্তিগত যোগাযোগে নিষিদ্ধ সংগঠনে ভেড়ার আমন্ত্রণ পায়।

আনসার আল ইসলামের জঙ্গিদের আফগানিস্তান যাওয়ার প্রবণতার বিষয়টি নজরদারি করা হচ্ছে জানিয়ে সিটিটিসির অন্য এক কর্মকর্তা বলেন, আগামী সেপ্টেম্বরে আমেরিকায় পেন্টাগনে হামলার ২০ বছর পূর্তির আগেই সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণা রয়েছে মার্কিন প্রশাসনের।

এমন পরিস্থিতিতে স্থানীয় জঙ্গিদের গ্রুপগুলো আফগানিস্তানে যাওয়ার চেষ্টা করতে পারে বলে তারা ধারণা করছেন। তবে এসব বিষয়ে গ্রেপ্তার চারজনকে বিস্তারিত জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

বে অব বেঙ্গল নিউজ / Bay of bengal news