খেলাধুলাফুটবলসকল সংবাদ

চ্যাম্পিয়নস লিগ: নেইমারই সেরা


শেষ ষোলোয় বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের বিপক্ষে জোড়া গোল করেছেন নেইমার। শেষ আটে আতালান্তার বিপক্ষে গোল না পেলেও নাচিয়েছেন ইতালিয়ান ক্লাবটির রক্ষণকে। একটি গোল বানানোর পাশাপাশি আরেকটি গোলের প্রাথমিক উৎস ছিলেন নেইমার। সেমিফাইনালে লাইপজিগের বিপক্ষেও গোল বানিয়ে দিয়েছেন তিনি। গোলপোস্ট কাঁপিয়েছেন দুবার।

ছবি:সংগৃহীত


সব মিলিয়ে এবারের মৌসুমে তিনি নিজে ৩ গোল করার পাশাপাশি বানিয়ে দিয়েছেন ৪ গোল। পিএসজি আজ ফাইনালে জিতুক কিংবা হারুক, এ মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগের সেরা খেলোয়াড় খুঁজতে গেলে নেইমারের নামই সবার আগে আসবে।


এ মৌসুমে ফাইনালে উঠেছেন বলেই হয়তো এভাবে চোখে পড়ছে। কিন্তু বাস্তবতা হলো ২০১৩ সালে বার্সেলোনায় যোগ দেওয়ার পর থেকেই ইউরোপিয়ান মঞ্চে ভালো করছেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড। ২০১৪-১৫ মৌসুমে বার্সেলোনার হয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতানোর পথে যুগ্মভাবে সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছিলেন নেইমার। বার্লিন ফাইনালে দলের তৃতীয় গোলটি ছিল তাঁর। আর পিএসজির বিপক্ষে বিখ্যাত সেই ৬-১ গোলের জয়ে তাঁর পারফরম্যান্স ছিল দেখার মতো।
সতীর্থদের ২৮টি গোল বানিয়ে দিয়েছেন নেইমার।
পরিসংখ্যানও কথা বলছে নেইমারের হয়ে। ৫৯ ম্যাচে ৩৫ গোল করেছেন। একবার সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছেন, পরের মৌসুমে সর্বোচ্চ ‘অ্যাসিস্ট’ও করেছেন নেইমার। ২০১৩-১৪ মৌসুম থেকে চ্যাম্পিয়নস লিগে তাঁর গোল বানানোর সংখ্যা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো কিংবা লিওনেল মেসির চেয়েও বেশি।
এ সময়ে সতীর্থদের ২৮টি গোল বানিয়ে দিয়েছেন নেইমার। অবিশ্বাস্য শোনাতে পারে, বার্সেলোনার প্রাণভোমরা লিওনেল মেসি নেই শীর্ষ তিনে। বরং যার গায়ে ‘স্বার্থপর’ ট্যাগ লাগিয়ে দেওয়া হয়েছিল, সেই ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো চমকে দিচ্ছেন সবাইকে। প্রথমে রিয়াল মাদ্রিদে ও পরে জুভেন্টাসে সতীর্থদের দিয়ে ২৫ গোল করিয়েছেন রোনালদো। এরপরই আছেন অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়া। পিএসজি উইঙ্গার সতীর্থদের ২০ গোল বানিয়ে দিয়েছেন। এর পর আছেন মেসি (১৭)। বিস্ময়করভাবে পাঁচে আছেন জেমস মিলনার। লিভারপুল মিডফিল্ডার ম্যানচেস্টার সিটি ও বর্তমান ক্লাবের হয়ে ১৫ গোল করিয়েছেন। ১ ‘অ্যাসিস্ট’ কম রোনালদোর এক সময়কার প্রিয় সতীর্থ মার্সেলোর।

ইউরোপিয়ান মৌসুমে এবার দারুণ ফর্মে আছেন রবার্ট লেভানডফস্কি। তবে এবারের চ্যাম্পিয়নস লিগ মৌসুম নেইমারের। নকআউট পর্বে চোখ জুড়ানো ফুটবল খেলে পিএসজিকে ফাইনালে তুলেছেন ব্রাজিলিয়ান তারকা। সমর্থকদের আক্ষেপ শুধু কোয়ার্টার ফাইনাল ও সেমিফাইনালে গোল পাননি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *